ঢাকা, রোববার, ২৬ জুন ২০২২

উখিয়ায় পৃথক পৃথক ভাবে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত

প্রকাশ: ২০১৭-০১-০৪ ২২:৪৯:১৬ || আপডেট: ২০১৭-০১-০৫ ১৩:০৫:০৬

পলাশ বড়ুয়া::
উখিয়ায় পৃথক পৃথক ভাবে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দেশের প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে।

৪ জানুয়ারী (বুধবার) বাংলাদেশ ছাত্রলীগ উখিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি ছৈয়দ মোহাম্মদ নোমানের সভাপতিত্বে কোটবাজারস্থ আলহাজ্ব হাকিম আলী চৌধুরী কেজি স্কুল মিলনায়তনে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটা হয়।  উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী।

উখিয়ায় পৃথক পৃথক ভাবে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপজেলা আওয়ামীলীগের  সিনিয়র সভাপতি অধ্যক্ষ শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক জাহাংগীর কবির চৌধুরী, যুগ্ন সাধরণ সাম্পাদক নুরুল হুদা, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল আলম মাহবুব, প্রচার সম্পাদক সাংবাদিক রাসেল চৌধুরী, রত্নাপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আসহাব উদ্দিন, পালংখালী আওয়ামীলীগের সভাপতি এম এ মনজুর, উখিয়া উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি ইউপি সদস্য সরওয়ার কামাল পাশা, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি সদস্য স্বপন শর্মা রণি, যুবলীগ নেতা আবুল হোসেন আবু, কক্সবাজার সরকারি কলেজের সাবেক সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান রুবেল, উখিয়া উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন সুজন প্রমুখ।

উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ছৈয়দ মোহাম্মদ নোমান বলেন, সবার আগে ছাত্রলীগের প্রত্যেক কর্মীকে ছাত্রত্ব নিশ্চিত করতে হবে। ছাত্রলীগের রাজনীতি মানে চাঁদাবাজি নয়। তাই সুশীল ছাত্রদের নিয়ে তাঁর নেতৃত্বে কোটবাজারে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। তাছাড়া উপজেলা, ইউনিয়ন, আ’লীগ ও অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ সর্বস্তরের নেতাকর্মী উপস্থিতি প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সভাপতি বিহীন সম্পাদকের নামে চিঠি ছাপিয়ে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলার প্রতিটি দপ্তর থেকে গণ চাঁদাবাজি করে সে। এমন কি পানের দোকানও বাদ পড়েনি চাঁদা দাবী থেকে। মিথুনের নেতৃত্বে রোহিঙ্গাদের নিয়ে মিছিল করা হয়েছে বলেও জানান নোমান।

অপরদিকে উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসাইন মিথুনের নেতৃত্বে উখিয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে ছাত্রলীগের ৬৯ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত হয়েছে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আ’লীগ উখিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদুল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান ছেনুয়ারা বেগম, পালংখালী আ’লীগ সভাপতি এম. এ মঞ্জুর, রাজাপালং আ’লীগ নুরুল আলম নুরুল, উখিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, রাজাপালং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগে কুতুপালং উচ্চ বিদ্যালয়, উখিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, বালুখালী উচ্চ বিদ্যালয় শাখার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উখিয়ায় পৃথক পৃথক ভাবে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপিত

ছাত্রলীগে বিভাজনের বিষয়ে জানতে চাইলে উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসাইন মিথুন বলেন, সভাপতি ছৈয়দ মোহাম্মদ নোমান তাঁর বিয়ে নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এবার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উখিয়া সদরে উদ্যাপিত হয়েছে। এ সময় তিনি আরো বলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, উখিয়া উপজেলা শাখা পরিচালিত হয় ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী। ছাত্রলীগের বাইরের কারো নেতৃত্বে নয়। তাছাড়া বর্তমান ছাত্রলীগ সভাপতির সাথে জামায়াত শিবিারের সখ্যতা সহ তার এক ভাই জামায়াত শিবিরের বায়তুলমাল সংগ্রহকারী বলেও তিনি বলেন।

দেশের ক্রান্তিকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাাজনৈতিক দুরদর্শী চিন্তা চেতনা থেকে ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারী ছাত্রলীগের জন্ম হয়। জন্মলগ্ন থেকে ছাত্রলীগ দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে আসছে। তাই উখিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সকল দ্বিধাবিভক্তি ভুলে স্বাধীনতা, সংগ্রাম আর শিক্ষার নিশ্চয়তা ছাত্রসমাজের তথা দেশবাসীর জন্য অতন্দ্র প্রহরী বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পতাকা তলে আসার আহবান জানান।