ঢাকা, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২

পশ্চিমরত্না শাসনতীর্থ সুদর্শন বিহারে বৎসরের শেষ কঠিন চীবর দান উদ্যাপিত

প্রকাশ: ২০১৬-১১-১৪ ১৬:৩৫:৩৭ || আপডেট: ২০১৬-১১-১৫ ১১:০২:০০

p-2
পলাশ বড়ুয়া:
ত্রৈ-মাসিক বর্ষাব্রত শেষে উখিয়া উপজেলার পশ্চিমরত্না শাসনতীর্থ সুদর্শন বিহারে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে প্রতি বারের ন্যায় এ বৎসরের শেষ কঠিন চীবর দান ও বৌদ্ধ সম্মেলন- ২০১৬ উদ্যাপিত হয়েছে।

১৪ নভেম্বর (সোমবার) শতাধিক বৌদ্ধ ভিক্ষু-সংঘ ও হাজারো অধিক পূণ্যার্থীদের অংশগ্রহণে অগ্গমহাসদ্ধর্ম জ্যোতিকাধ্বজ, উপসংঘরাজ ভদন্ত সত্যপ্রিয় মহাথের (একুশে পদকপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ, রামু কেন্দ্রীয় সীমা বিহার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চীবর দানানুষ্ঠানে প্রধান সদ্ধর্মালোচক- ত্রিপিটক বিশারদ, ভদন্ত এস. লোকজিৎ থের, এম.এ.এম.পিল, রিসার্চ স্কলার, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। আর্শীবাদক- এস. ধর্মপাল মহাথের, কার্যকরী সভাপতি, উখিয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতি। প্রধান জ্ঞাতী ভদন্ত কুশলায়ন মহাথের, পরিচালক, জ্ঞানসেন বৌদ্ধ ভিক্ষু-শ্রামণ প্রশিক্ষণ ও সাধনা কেন্দ্র। প্রধান অতিথি- খাইরুল আলম চৌধুরী, চেয়ারম্যান, রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বিহারের অবকাঠামো উন্নয়নে ১০ হাজার ইট ও গভীর নলকূপ সহ প্রয়োজনীয় অনুদানের আশ্বাসও দেন। উপস্থিত ছিলেন সদস্য নুরুল হক মনু এবং ডা: মোকতার আহমদ উপস্থিত ছিলেন।

সদ্ধর্মদেশক বৃন্দ- ভদন্ত বিমল জ্যোতি মহাথের, অধ্যক্ষ, দীপাংকুর বৌদ্ধ বিহার, মরিচ্যা। ভদন্ত ইদ্রবংশ মহাথের, অধ্যক্ষ, হীরারদ্বীপ, শ্রদ্ধাংকুর বৌদ্ধ বিহার। ভদন্ত প্রজ্ঞাবোধি মহাথের, উপাধ্যক্ষ, পাতাবাড়ী আনন্দ ভবন বিহার। ভদন্ত জ্যোতি প্রিয় থের, সাধারণ সম্পাদক, উখিয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতি। ভদন্ত জ্যোতি শান্ত থের, আবাসিক প্রধান, কালাচাঁদ বৈজয়ন্ত বৌদ্ধ বিহার। ভদন্ত প্রিয়তিষ্য স্থবির, অধ্যক্ষ, পাইন্যাশিয়া শান্তি নিকেতন বৌদ্ধ বিহার। ভদন্ত জ্যোতি সুমন ভিক্ষু, আবাসিক প্রধান, ক্ষেতিসারাম বৌদ্ধ বিহার। ভদন্ত প্রজ্ঞাসত্য ভিক্ষু, আবাসিক প্রধান, বৌদ্ধ মহাশ্মশান ও বোধিজ্ঞান ভাবনা কেন্দ্র। উদ্বোধক- ভদন্ত শাসনপ্রিয় থের, অধ্যক্ষ পশ্চিমরতœা শাসনতীর্থ সুদর্শন বিহার। দান সভায় বিহারের উন্নয়নের জন্য পূর্বরতরত্না মৈত্রী বিহার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক অব: শিক্ষক সুবধন বড়ুয়া অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন।

প্রথমপর্বে ভদন্ত বিজয় রক্ষিত মহাথের’র সভাপতিত্বে প্রধান সদ্ধর্মদেশক হিসেবে সদ্ধর্মালোচনা করেন ভদন্ত কে.শ্রী জ্যোতিসেন থের, পরিচালক, ঐতিহাসিক রাংকূট বনাশ্রম বৌদ্ধ বিহার। বিশেষ দেশক- ভদন্ত জ্যোতি প্রজ্ঞা থের, আবাসিক প্রধান, মধ্যরত্না রত্নাংকুর বৌদ্ধ বিহার। ভদন্ত জ্যোতি লংকার ভিক্ষু, অধ্যক্ষ কুতুপালং, নবোদয় মৈত্রী বিহার। ভদন্ত জ্যোতি লায়ন থের, আবাসিক প্রধান  পূর্বরত্না আনন্দ বৌদ্ধ বিহার।

স্বাগত ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন করেন- বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুভাষ বড়ুয়া ও প্রাক্তন সভাপতি মধু সুদন বড়ুয়া।

দিনব্যাপী কর্মসূচীতে ভোরে প্রভাতফেরী সহকারে বুদ্ধপুজা, জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, সংঘদান, সদ্ধর্মদেশনা, পরিক্রমা সহ কঠিন চীবর, কল্পতরু উৎসর্গ ও সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জলের মাধ্যমে বিশ্বশান্তি কামনায় সমবেত প্রার্থনার মাধ্যমের বৎসরের শেষ কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।
সঞ্চালনা করেন : কল্যাণ শ্রামণ ও বাপ্পা বড়ুয়া।