ঢাকা, শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২

উখিয়ার ঘাট বিট কর্মকর্তার যোগসাজসে পাহাড় কাটা ও বাড়ী নির্মানের হিড়িক

প্রকাশ: ২০১৫-১২-২৭ ২১:০১:১০ || আপডেট: ২০১৫-১২-২৭ ২১:০১:১০

Shahid Pic Ukhiya 27.12.2015

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া :
কক্সবাজার দক্ষিন বন বিভাগের উখিয়া রেঞ্জের আওতাধীন উখিয়ার ঘাট এলাকায় স্থানীয় বিট কর্মকর্তার সহযোগিতায় ভুমি দস্যু কতৃক বন ভুমি বিক্রি ও সরকারী বিলাস বহুল পাহাড় কেটে বাড়ী নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের উখিয়ার ঘাট বন বিটের অধীনে ২৪ শত ৪৪ একর সরকারী বন ভুমি কাগজে কলমে থাকলে ও উক্ত বন ভুমি বর্তমানে প্রায় ভুমি দস্যুদের দখলে বলে জানা গেছে। উখিয়ার ঘাট বিট কর্মকর্তা মোবারক আলী এলাকার চিহ্নিত ভুমি দস্যুদের সাথে বৃহত্তর সিন্ডিকেট তৈরি করে মোটা অংকের টাকায় ম্যানেজ হয়ে ভুমি দস্যুদের কাছে সরকারী বন ভুমি বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আঙ্গুল ফোলে কলা গাছে পরিনত হয়েছে। শুধু তাই নয়, সম্প্রতি বালুখালী পান বাজার এলাকার পশ্চিম পার্শ্বে বিএনপি নেতা, চিহ্নিত ভুমি দস্যু ও ইয়াবা স¤্রাট আকবর হাজী ইয়াবার কালো টাকার পাহাড় দিয়ে স্থানীয় বিট কর্মকর্তা মোবারক আলীকে ম্যানেজ করে সরকারী বন ভুমির বিলাস বহুল পাহাড় কেটে আলীশান বাড়ী নির্মান করছে, অন্যদিকে বালুখালী বিজিবি ক্যাম্পের পশ্চিম পার্শ্বে মৃত ইয়াকুব আলীর পুত্র ভুমিদস্যু ও আবদুর রহমান, একই এলাকার মোঃ হোছনের পুত্র আবুল কালাম, আবুল মন্সুর সহ সংঘবদ্ধ ভুমিদস্যুরা বিট কর্মকর্তার সাথে গভীর সখ্যতা গড়ে তোলে সমানতালে বন ভুমির পাহাড় কেটে বাড়ী নির্মানের মহোৎসব চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। আলীশান বাড়ী নির্মানকারী ও অভিযুক্ত হাজী আকবর বলেন, আমি বন ভুমির জায়গায় বাড়ী নির্মান করছি। উখিয়ার ঘাট বিট কর্মকর্তা মোবারক আলী পাহাড় কাটা ও বাড়ী নির্মানের কথা স্বীকার করলেও আর্থিক লেনদেনের কথা তিনি অস্বীকার করেন। এ ব্যাপারে উখিয়া রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ মনিরুল ইসলাম বিট কর্মকর্তা ও ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।