ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ মিশন শুরুতেই বড় ধাক্কা খেলো বাংলাদেশ

প্রকাশ: ২০১৫-১২-২৪ ২৩:৩৬:২০ || আপডেট: ২০১৫-১২-২৪ ২৩:৩৬:২০

বাংলাদেশকে ৪-০ গোলে হারালো আফগানিস্তান

অনলাইন ডেস্ক:

কেরালায় বাংলাদেশের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ মিশন শুরুতেই খেলো বড় এক ধাক্কা। বৃহস্পতিবার গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে মারুফুল হকের শিষ্যরা আফগানিস্তানের কাছে হেরেছে –গোলে। পুরো খেলায় নিশ্চিত গোলের কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশ। প্রথমার্ধে ৩-০ গোলে পিছিয়ে ছিল তারা। বাংলাদেশের গ্রুপ ‘বি’তে একই দিনে মালদ্বীপ ৩-১ গোলে হারিয়েছে ভুটানকে। ২৬ ডিসেম্বর দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ।

বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমান সাফ চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান ১৫০। আর ২০০৩ সালের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ ১৮২তম। র‌্যাঙ্কিং থেকেই পরিস্কার দুই দলের মধ্যে ব্যবধান। আফগানদের অনেক খেলোয়াড় খেলেন ইউরোপের বিভিন্ন লিগে। হিসেবে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক এগিয়ে আফগানরা।

ত্রিবান্দ্রামের ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে খেলার শুরু থেকে আফগানরা ছিল আক্রমণের মুডে। প্রথম থেকেই বাংলাদেশের ডিফেন্স ও গোলকিপার শহিদুল ইসলামকে ব্যস্ত থাকতে হয়েছে।

৩১ মিনিট পর্যন্ত ঠেকিয়ে রাখা গেছে আফগানদের। তারপর আর পারা যায়নি। ১০ মিনিটে ৩ গোল করে বাংলাদেশকে ম্যাচ থেকে একরকম ছিটকে ফেলে তারা। প্রথম গোলটি করেন মসিহ সাইঘানি। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল বাঁ প্রান্ত থেকে আরেক খেলোয়াড় ফেলেন বক্সে। সাইঘানি চমৎকার হেডে বল পাঠিয়েছেন জালে।

এর এক মিনিট পরই আবার উৎসবে মাতে আফগানিস্তান। বক্সের ভেতর বল পেয়েছিলেন ফয়সাল শায়েস্তে। শহিদুল সামনে এগিয়ে এসে ভুল করলেন। তার মাথার ওপর দিয়েই বলটাকে জালে পাঠিয়েছেন ডিফেন্ডার ও অধিনায়ক ফয়সাল।

৪০ মিনিটে একটি আক্রমণ গড়ে বাংলাদেশ। কিন্তু শেষটায় সোহেল রানার নেয়া শট গোলবারের ওপর দিয়ে চলে যায়।

এর পরের মিনিটেরই মাঝ মাঠ থেকে বল চলে আসে বাংলাদেশের প্রান্তে। ডিফেন্ডাররা তখনো নিচে নামতে পারেননি। শহিদুল এগিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু আলতো ছোঁয়ায় বলটা জালে ঢুকিয়েছেন জুবায়ের আমিরি। ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় আফগানিস্তান।

দ্বিতীয়ার্ধেও বাংলাদেশের প্রান্তেই থাকে বল। তারা কেবল আক্রমণ ঠেকিয়ে যায়। গোল শোধ করে খেলায় ফেরার মতো অবস্থায় আসতে পারে না। বিচ্ছিন্ন দুটি একটি আক্রমণ পরিণতি পাওয়ার মতো অবস্থাতেও যায় না। এভাবেই এগিয়ে চলে খেলা। ৬৮ মিনিটে আফগানদের এক আক্রমণে হাতিফির আচমকা শট শহিদুল ঠেকিয়ে না দিলে বিপদ হতো।

শেষের দিকে আফগানরা সেভাবে জোর দিয়ে আক্রমণ করেনি। তারপরও ৬৮ মিনিটে দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম ও ম্যাচের চতুর্থ গোল পেয়ে যায় তারা। গোলটি করেন জার্মানিতে জন্ম নেয়া ফরোয়ার্ড খাইবার আমানি। ডি বক্সের প্রান্ত থেকে নেয়া তার শট প্রথম চেষ্টায় ঠেকিয়ে দেন শহিদুল। ফিরে আসা বলকে জালে জড়াতে পেরেছেন আমানি।