ঢাকা, রোববার, ৩ জুলাই ২০২২

৩ লাখ ২০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ চান সিমন্স

প্রকাশ: ২০১৫-১২-১৬ ১১:১১:০৫ || আপডেট: ২০১৫-১২-১৬ ১১:১১:০৫

105831simmons

অনলাইন ডেস্ক::

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বর্তমান কোচ ফিল সিমন্স এক সময় ছিলেন জিম্বাবুয়ের কোচ। সেটা ১০ বছর আগের কথা। তখন তাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। আর এক দশক পর বেআইনীভাবে পদচ্যুত করার অভিযোগে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের বিরুদ্ধে আদালতে গেলেন সিমন্স। ৩ লাখ ২০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন তিনি। তার আইনজীবি জানিয়েছেন, শিগগিরই এই বিষয়টি আদালতে উঠবে। সিমন্স জিম্বাবুয়ে গিয়েছিলেন ন্যাশনাল একাডেমির দায়িত্ব নিয়ে। পরে ২০০৪ সালে তাকে জিম্বাবুয়ের প্রধান কোচ করা হয়। কিন্তু ২০০৫ সালের আগস্টে তাকে সরিয়ে জিম্বাবুয়ের সাবেক খেলোয়াড় কেভিন কুরানকে কোচ করা হয়। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট তখন ঘোষণা দিয়েছিল, সিমন্সকে নতুন দায়িত্ব দেবে তারা। এ জন্য ২০০৬ পর্যন্ত দেশটিতে থেকে যান সিমন্স। ২৬ টেস্ট ও ১৩৪ ওয়ানডে খেলা সিমন্সকে তখন বলা হয়েছিল, বাজে ফলাফলের জন্যই এই পরিবর্তন। যদিও তখন বোর্ডের মধ্যে ক্ষমতা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে লড়াই চলছিল। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সাথে সম্পর্কটা সিমন্সের শেষ হয়ে যায় ২০০৬ সালে তার চুক্তি বাতিল করা হলে। জানা যায়, তখন সিমন্সকে দেশ থেকে বের করে দেয়ার জন্য বোর্ড কর্তারা ইমিগ্রেশন কর্মকর্তাদের সহায়তাও চেয়েছিল। এদিকে, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দাবি করেছে তারা সিমন্সকে বেআইনীভাবে বরখাস্ত করেনি। “অসন্তোষজনক পারফরম্যান্সের” কারণে তার চুক্তি “আইন” মেনেই বাতিল করা হয়েছিল। তারা বলছে, সিমন্সের দাবি অযৌক্তিক। তারা উল্টো সিমন্সকে সেই সময়ে দেয়া অফিসিয়াল গাড়িটি দাবি করেছে। সিমন্স বলেছেন, ওই গাড়ি তাকে দেয়া হয়েছিল সুযোগ সুবিধার অংশ হিসেবে। জিম্বাবুয়ের চাকরী হারানোর পর আইসিসির সহযোগী দেশ আয়ারল্যান্ডের কোচের দায়িত্ব পালন করেন সিমন্স। এখন তো নিজ ভূমি ওয়েস্ট ইন্ডিজেরই প্রধান কোচ।

সিএসবি২৪/কেবি