ঢাকা, রোববার, ২৬ জুন ২০২২

বাঁকখালীর বেড়িবাঁধ নির্মাণে বৃহৎ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে : পানি সম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৫ ১৯:৪৫:১৯ || আপডেট: ২০১৫-১১-০৫ ১৯:৪৫:১৯

DSC06965 copy
খালেদ হোসেন টাপু,রামু :
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এম,পি বলেছেন কক্সবাজার থেকে রামুর কাউয়ারখোপ পর্যন্ত বাঁকখালী নদীর উভয় পাড়ে বাঁধ নির্মাণে ১শ ২৯ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। এ বৃহৎ প্রকল্পটি দ্রুত বাস্তবায়নের মাধ্যমে কক্সবাজার ও রামু উপজেলার মানুষকে ভয়াবহ বন্যার কবল থেকে মুক্ত করা হবে।
বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে রামু উপজেলার তেমুহনী পয়েন্ট সংলগ্ন বাঁকখালী নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার প্রধান পৃষ্ঠপোষক কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম কমল বলেছেন, পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ কক্সবাজারের পিএমখালী, ঝিলংজা, মোক্তারকুল, খরুলিয়া, রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি, চাকমারকুল ও কলঘর এলাকার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সাথে কথা বলেছেন। ইতিপূর্বে কোন মন্ত্রী সাধারণ মানুষের এত কাছাকাছি আসেননি। এজন্য তিনি মন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।
রামু সোনালী অতীত ফুটবল ক্লাবের সভাপতি ছিদ্দিক আহমদের সভাপতিত্বে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নারায়নগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মাহমুদ, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য খোরশেদ আরা হক, কক্সবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. ইলিয়াছ, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রামু সোনালী অতীত ফুটবল ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পলক বড়–য়া আপ্পু।
উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নিতীশ বড়–য়ার সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ড. অনুপম শাহা, সহকারী পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী, সহকারী পুলিশ সুপার (উখিয়া সার্কেল) আব্দুল মালেক মিয়া, রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিনা কাজী, রামু থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মজিদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম, শ্রমিকলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম আনছারি, আওয়ামীলীগ নেতা মাষ্টার ফরিদ আহমদ, সাবেক চেয়ারম্যান জাফর আলম চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুরাল হেলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক রুস্তম আলী চৌধুরী, বৌদ্ধ ঐক্য ও কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তরুণ বড়–য়া, উপজেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি নুরুল কবির হেলাল ও আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল হক, সৈনিকলীগ সভাপতি ইউনুছ খান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সম্পাদক মো. আবু বক্কর ছিদ্দিক প্রমূখ।
এদিকে, এ প্রতিযোগিতায় রামু ও কক্সবাজারের ২২টি নৌকা বাইচ দল প্রথম রাউন্ডের খেলায় অংশ নেয়। গেল রোববার (২৫ অক্টোবর) প্রথম রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বৃহস্পতিবার সুপারলীগের চুড়ান্তপর্বে শীর্ষ পয়েন্টের ৬টি নৌকা বাইচ দল খেলায় অংশ নেয়। সুপারলীগের প্রথম স্থান লাভ করে পিএম খালী নৌকা বাইচ দল, দ্বিতীয় স্থান লাভ করে নোনাছড়ি নৌকা বাইচ দল।