ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

জাতীয় সংসদের মূল নকশা দাখিলের নির্দেশ

প্রকাশ: ২০১৫-১১-০৪ ১৩:৪৭:৩৩ || আপডেট: ২০১৫-১১-০৪ ১৩:৫২:১৬

image_286741.high cort
csb24.com::
স্থপতি লুই আই কানের তৈরি জাতীয় সংসদ কমপ্লেক্সের মূল নকশা তিনমাসের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সংসদ কমপ্লেক্সের মূল নকশার বাইরে বিভিন্ন ভবন থাকা নিয়ে করা রিট মামলার শুনানিতে আজ বুধবার জাতীয় সংসদ সচিবালয়কে এ নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে তিন বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা।

আদেশের পরে তিনি সাংবাদিকদের জানান, পরিবেশবাদী এক সংগঠনের রিটের শুনানি নিয়ে ২০০৪ সালের ২১ জুন স্পিকার ও ডেপুটি স্পিকারের বাসভবন মূল নকশার বাইরে বলে রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে সংসদ ভবন এলাকাকে বিশ্ব ঐতিহ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে ইউনেস্কোর কাছে আবেদনেরও নির্দেশ দেন। এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যান রাষ্ট্রপক্ষ। এ আপিলের শুনানিতে আদালত মূল নকশা তিনমাসের মধ্যে দাখিলের নির্দেশ দেন।

মুরাদ রেজা বলেন, আদালতে বলেছি- হাইকোর্টের ওই রায় ছিল অনাকাঙ্খিত। যদি সংসদ ভবন ইউনেস্কো বিশ্ব ঐতিহ্যে অন্তর্ভূক্ত করা হয় তা হবে আমাদের জন্য অপমানজনক। পৃথিবীর কোথাও সংসদ ভবনকে বিশ্ব ঐতিহ্যে অন্তর্ভূক্তের নজির নেই। তাছাড়া মূল নকশা না দেখে কিভাবে স্পিকারদের বাসভবনকে হাইকোর্ট অবৈধ বললেন তা বোধগম্য নয়। তিনি বলেন, আমাদের জানা মতে মূল নকশাটি যুক্তরাষ্ট্রের পেনসেলবেনিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির আর্কাইভসে রয়েছে। আর এ মূল নকশা পেলে আমরা বুঝতে পারবো বাসভবনগুলোর অবস্থান সম্পর্কে। এজন্য আদালত সংসদ সচিবালয়ের সচিবকে তিনমাসের মধ্যে মূল নকশা দাখিলের নির্দেশ দেন।

উইকিপিডিয়ার তথ্যমতে, জাতীয় সংসদের মূল নকশার স্থপতি লুই আই কান। তৎকালীন পাকিস্তান সরকার পূর্ব পাকিস্তান (বর্তমান বাংলাদেশ) ও পশ্চিম পাকিস্তানের (বর্তমান পাকিস্তান) আইনসভার জন্য জাতীয় সংসদ ভবনের নির্মাণ শুরু করে ১৯৬১ সালে। ১৯৮২ সালের ২৮ জানুয়ারি নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর একই বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের দ্বিতীয় সংসদের অষ্টম ও শেষ অধিবেশনে প্রথম এ সংসদ ভবন ব্যবহৃত হয়।