ঢাকা, শনিবার, ২ জুলাই ২০২২

কক্সবাজার শহর থেকে যুবক অপহরণ : মুক্তিপণ দাবী : পরে উদ্ধার

প্রকাশ: ২০১৫-১০-৩১ ২০:৫৯:৪৩ || আপডেট: ২০১৫-১০-৩১ ২০:৫৯:৪৩

নিজস্ব প্রতিবেদক::
কক্সবাজার শহরের বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমীর সামনে থেকে একদল অপহরণকারী রেজাউল হাসান বাপ্পি নামের এক যুবককে অপহরণ করে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ফাঁড়িরবিল এলাকার মরহুম সিকান্দর আলীর পুত্র রেজাউল হাসান বাপ্পী (১৭) গতকাল তার বড় বোনের সাথে ইন্টারভিউ দেয়ার জন্য কক্সবাজার শহরের বায়তুশ শরফে যান। ইন্টারভিউ শেষে চলে যাওয়ার পথে একদল অপহরণকারী বাপ্পীকে কথা আছে বলে ডেকে নিয়ে দ্রুত সিএনজিতে তুলে ফেলেন। মুখ আর চোখ বেধে পেশকার পাড়ার দিকে নিয়ে যায়। অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার পর বিভিন্ন মোবাইল নম্বর থেকে ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করা হয়। মুক্তিপণ না দিলে জীবনে খুন করে ফেলবে বলে হুমকি প্রদান করেন। পরবর্তীতে আইন শৃংখলা বাহিনী ও অপহৃতের আত্মীয়-স্বজনের জোর প্রচেষ্টায় বাপ্পীকে পেশকার পাড়া রাজু চটপটি দোকানের সামনে থেকে উদ্ধার করেন। বাপ্পীর কাছ থেকে অপহরণকারীরা জোর পূর্বক ৩০০ টাকার খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেন। অপহৃত বাপ্পী উদ্ধার হওয়ার পর এ প্রতিবেদককে জানান, উখিয়ার পালংখালীর ছৈয়দ নূরের পুত্র সরওয়ার, আলী মদনের পুত্র জয়নাল ও ছৈয়দুল বশর মানিক নামের তিন জন অপহরণকারীকে তিনি চিনতে পেরেছেন। এ সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্র কক্সবাজারে এসে কক্সবাজারে কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসীদেরকে নিয়ে এ জঘন্যতম ঘটনাটি ঘটিয়েছেন। অপহৃত রেজাউল হাসান বাপ্পীর মেঝ মামা কক্সবাজার জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবি এডভোকেট মোঃ আব্দুল মন্নান এ প্রতিবেদককে জানান আল্লাহর অশেষ রহমতে আমার ভাগিনাকে আইন শৃংখলা বাহিনী ও আমাদের প্রচেষ্টায় আমরা উদ্ধার করেছি। অপহরণকারী চক্রের বিরুদ্ধে শীঘ্রই মামলা করা হবে। এব্যাপারে জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. এ.কে.এম আহমদ হোসেন জানান, রেজাউল হাসান বাপ্পীর অপহরণের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। এব্যাপারে যথাযথ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তিনি বলেছেন।