ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

কক্সবাজারে বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত-২, আহত-১০

প্রকাশ: ২০১৫-১০-৩০ ২০:৪২:১৯ || আপডেট: ২০১৫-১০-৩০ ২০:৪২:১৯

accident

ইমাম খাইর:
কক্সবাজার শহরের ঝিলংজা জানারঘোনা এলাকায় যাত্রীবাহী বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাসের চালকসহ দুইজন মারা গেছে।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো অন্তত দশজন। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় পাঁচজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ৩০ অক্টোবর শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ী দু’টি ঘটনাস্থলে রয়েছে।
এ ঘটনায় নিহতরা হলেন- মাইক্রোবাসের চালক চকরিয়া সদর এলাকার বেদু বড়ুয়ার ছেলে মিন্টু বড়ূয়া ও যাত্রী চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার বাসিন্দা বর্তমানে কক্সবাজার শহরের গাড়ির মাঠ এলাকার মৃদুল দাশের স্ত্রী স্বপ্না দাশ।

আহতদের মধ্যে কয়েকজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- নিহত স্বপ্না দাশের স্বামী কক্সবাজার শহরের গাড়ির মাঠ এলাকার মৃদুল দাশ, তার ছেলে কার্তিক দাশ, সদর উপজেলা ইসলামপুর এলাকার নুর আহমদের ছেলে আবুল কাশেম, মানিকগঞ্জের মোতালেবের ছেলে রিপন, চকরিয়া মাইজঘোনা এলাকার আবুল কালামের ছেলে নাছির উদ্দিন, টেকনাফ হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মোস্তফা কামালের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন ও চকরিয়া আজিজ নগর এলাকার মোহাম্মদ হানিফ।

আহতদেরকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী।
তবে হানিফ পরিবহনের কেউ আহত বা নিহত হয়েছে কিনা সে খবর পাওয়া যায়নি।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হানিফ পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৬৬৫১) কক্সবাজার যাওয়ার পথে ঝিলংজা জানারঘোনা এলাকায় চট্টগ্রামগামী একটি মাইক্রোবাসের (চট্টমেট্রো-চ-১১-৩১১২) সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় মাইক্রোবাসে থাকা যাত্রীরা কমবেশী সবাই আহত হয়।

স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। আহত স্বপ্না দাশ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে এবং চালক চালক মিন্টু বড়ুয়া চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. ওয়াহিদুজ্জামান মুরাদ জানান, আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় পাঁচজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে মাইক্রো চালক মারা যায়।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, লিংকরোড এলাকায় চট্টগ্রামগামী হানিফ পরিবহণ ও চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজারগামী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অস্থায় একজন মারা যায়। আশঙ্কাজনক পাঁচজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে একজনের মৃত্যু হয়।