ঢাকা, বুধবার, ২৯ জুন ২০২২

পুতিনকে বুঝিয়ে ছাড়তে হবে সোভিয়েত সাম্রাজ্য ফিরছে নাঃ লাটভিয়ার মন্ত্রী

প্রকাশ: ২০২২-০৫-১৬ ০৭:৩৫:১০ || আপডেট: ২০২২-০৫-১৬ ০৭:৩৫:১০

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

ইউক্রেনে চলতে আগ্রাসনে রাশিয়ার বিজয় নয় বরং শোচনীয় পরাজয় হবে বলে মনে করেন লাটভিয়ার প্রতিরক্ষা এবং উপপ্রধানমন্ত্রী আর্টিস পাবরিকস। এই বাস্তবতা রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কাছে স্পষ্ট করে দিতে ন্যাটো সহযোগীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রবিবার এস্তোনিয়ার তাল্লিনে লেন্নার্ট মেরি কনফারেন্সের পার্শ্ববৈঠকে নিউজউইককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লাটভিয়ার প্রভাবশালী এই মন্ত্রী এসব কথা বলেন। আর্টিস পাবরিকস বলেন, পুতিন সোভিয়েত ইউনিয়ন পুনরুদ্ধার করতে আগ্রহী কিন্তু তাকে দেখিয়ে ছাড়তে হবে যে সেটি সম্ভব নয়।

রুশ আগ্রাসন প্রসঙ্গে পাবরিকস বলেন, ‘প্রশ্ন হচ্ছে রাশিয়া কিভাবে হারবে। তাদের বুঝিয়ে ছাড়তেই হবে যে তারা হারছে’।

গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে আগ্রাসনের শুরুর পর থেকেই কিয়েভকে আরও বেশি সহায়তা দিতে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং ন্যাটো মিত্রদের প্রতি বারবার আহ্বান জানিয়ে আসছেন আর্টিস পাবরিকস। লাটভিয়ার এই উপপ্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শেষ খেলাটি খুবই পরিষ্কার। ইউক্রেন অবশ্যই জিতবে, রুশরা অবশ্যই হারবে। সার্বভৌমত্ব পুনর্বহাল হবে। তারপর আমরা কথা বলবো।’

খবর পাওয়া যাচ্ছে, ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের লড়াইয়ে হিমশিম খাচ্ছে রুশ বাহিনী। যুদ্ধক্ষেত্রের এই অপ্রত্যাশিত সফলতায় এখন ইউক্রেনীয় নেতারা ইঙ্গিত দিচ্ছেন তারা হয়তো ক্রিমিয়া পুনরুদ্ধার করে নিতে পারবে। ডনবাস অঞ্চলের এই অঞ্চলটি ২০১৪ সালে দখল করে নেয় রাশিয়া।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এবং জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শ্যুলজসহ ইউরোপের বেশ কয়েক জন প্রখ্যাত রাজনীতিবিদ একটি যুদ্ধবিরতিকে অগ্রাধিকার দিচ্ছেন। যদিও ন্যাটো সহযোগী এবং ইউক্রেনীয়রা বলছেন এখন কোনও অসুবিধাজনক শান্তির জন্য মীমাংসা করার সময় নয়।

পুতিনকে যুদ্ধ শেষ করার জন্য বা ক্রেমলিনকে মুখ বাঁচাতে সাহায্য করার উপায় খুঁজে বের করতে পশ্চিমাদের সাহায্য করা উচিত কিনা তা জানতে চাইলে পাবরিকস বলেন, ‘এটা আমাদের উদ্বেগ নয়। আমাদের রুশদের বিব্রত করার দরকার নেই।’

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রতি ইঙ্গিত করে লাটভিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যদি তিনি মার্শাল আর্ট যোদ্ধা হয়ে থাকেন, তাহলে তিনি অবশ্যই জানবেন কিভাবে হারতে হয়। এটা তার সমস্যা। আমাদের সমস্যা নয়।

আপনি অপরাধ করলে আমাদের কেন আপনার মুখ রক্ষা করতে হবে? আপনি অপরাধী, ক্ষমা চান, নত হন, কিছু একটা করেন। তারপর ঠিক আছে আলোচনায় বসুন।’

সিএসবি-টুয়েন্টিফোর; ১৬/৫-(আ/১)