ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২

কাপ্তাইয়ে বোরোর বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে সোনালী হাসি

প্রকাশ: ২০২২-০৫-১০ ১২:৩৫:৪১ || আপডেট: ২০২২-০৫-১০ ১২:৩৫:৪১

 

মোঃ নজরুল ইসলাম লাভলু, কাপ্তাই
চলতি বোরো মৌসুমে কাপ্তাই উপজেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী ধান উৎপাদন হওয়ায় কৃষকের মুখে ফুটেছে সোনালী হাসি। ফলে ব্যস্ততা বেড়েছে কৃষাণ-কৃষাণীর।

জানা গেছে, কাপ্তাই উপজেলাধীন রাইখালী এবং চিৎমরম ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশী ধানের ফলন হয়েছে। উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের রিফিউজি পাড়া, বড়খোলা পাড়া এবং চিৎমরম ইউনিয়নের আমতলী পাড়ায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধানের ব্যাপক সমারোহে ভরপুর সবুজ প্রান্তর। জমিতে জমিতে ধানের গন্ধে মৌ মৌ করছে চারপাশ। কৃষাণ -কৃষাণী ব্যস্ত ধান কাটায়। তবে গত বছরের মতো এবছরও কৃষকরা ধান কাটার শ্রমিক সংকটে ভুগছেন বলে কৃষক উথোয়াই মং মারমা এবং কৃষক ইসমাইল হোসেন জানান।

কাপ্তাই উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মধুসূদন দে জানান, এবছর কাপ্তাই উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের প্রায় ৩২৬ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ব্যাপক ফলন হয়েছে। যার মধ্যে উফসী জাতের ব্রিধান-২৮, ১৫০ হেক্টরে, ব্রিধান-২৯,
৭৫ হেক্টরে, ব্রিধান-৭৪, ৮৯ হেক্টরে, ব্রিধান -৮৯, ৮০ হেক্টরে, ব্রিধান-৯২, ৬০ হেক্টরে, হাইব্রিড জাতের হিরা, ৩ হেক্টরে, এসএল ৮ এইস, ৬ হেক্টরে এবং এসিআই ১, ৩৫ হেক্টরে চাষ করা হয়েছে। সবমিলে মোট ৩২৬ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ফলন হয়েছে। এবছর কৃষি বিভাগের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯৬০ মেট্রিকটন। তবে এই লক্ষ্যমাত্রা ছেড়ে যেতে পারে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগ জানিয়েছে।
ইতিমধ্যে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে ধানকাটা শুরু হয়ে গেছে।

এবার ধানের ব্যাপক ফলন হওয়ায় কৃষকেরা আশানুরূপ ফলন গোলায় তুলতে পারবে বলে মাঠ পর্যায়ের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অংছাই মং চৌধুরী এবং অনিমেষ প্রকাশ বড়ুয়া আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।